অশালীন মন্তব্য করায় শিক্ষককে পিটুনি

Comments

ছাত্রীদের অশালীন মন্তব্য করায় এক শিক্ষককে পিটিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে টাঙ্গাইলের বিন্দুবাসিনী সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। অভিযুক্ত শিক্ষকের নাম সাইদুর রহমান বাবুল (৪২)।

শিক্ষক সাইদুর রহমান বাবুল দীর্ঘদিন ধরেই ক্লাসের ছাত্রীদের অশালীন মন্তব্য ও কু-প্রস্তাব দিয়ে আসছিল। রোববার, ৩০ সেপ্টেম্বর নবম শ্রেণির এক ছাত্রীকে কু-প্রস্তাব দিলে ওই দিনই সকল ছাত্রীরা প্রধান শিক্ষককে বিষয়টি অবগত করেন, কিন্তু প্রধান শিক্ষক মামুন তালুকদার অভিযুক্ত ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা না নিয়ে উল্টো ছাত্রীদের স্কুল থেকে বের করে দেয়ার ভয় দেখিয়ে কিছু ছাত্রীর স্বাক্ষর নেন।

স্কুল ছুটি শেষে ছাত্রীরা তার অভিভাবকদের জানালে সোমবার, ১ অক্টোবর সকালে অফিস কক্ষে বিদ্যালয়ের সহকারী ইংরেজি শিক্ষক সাইদুর রহমান বাবুলকে অবরুদ্ধ করে রাখে। অবস্থা বেগতিক দেখে সাইদুর কৌশলে পালানোর চেষ্টা করে। পরে বিদ্যালয়ের ছাত্রী ও অভিভাবকরা সাইদুরকে ধরে মারধর করেন। 

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বলেন, তিনি কোনো ছাত্রীর কাছ থেকে স্বাক্ষর নেননি। তবে ছাত্রীদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে সাইদুরকে পুলিশে সোপর্দ করা হয়েছে।

যৌন হয়রানির শিকার ছাত্রী জানায়, দীর্ঘদিন ধরেই সাইদুর তাদের অনেককে বিভিন্নভাবে কুপ্রস্তাব দিচ্ছিলেন। বিষয়টি একাধিকবার বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে জানানোর পরও তিনি কোনো ব্যবস্থা নেননি। তারা সাইদুরের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চায় ও প্রধান শিক্ষকের অপসারণ দাবি করে।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা) আশরাফুল মোমিন বলেন, অভিযুক্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। শিক্ষার্থীদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে তাঁকে বরখাস্তও করা হয়েছে। ঘটনায় অন্য কেউ জড়িত থাকলে তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এদিকে সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সায়েদুর রহমান বলেন, অভিযুক্ত শিক্ষককে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে কারাদণ্ড দিয়ে জেলহাজতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক আছে।

বাঙালীয়ানা/জেএইচ

মন্তব্য করুন (Comments)

comments

Share.