ইয়েমেনে দুর্ভিক্ষের ঝুঁকিতে ১০ লাখ শিশু

Comments

অশান্ত মধ্যপ্রাচ্যের দেশ ইয়েমেনে সম্প্রতি চলমান সংঘাতে ভয়াবহ দুর্ভিক্ষের মুখে পড়েছে ইয়েমেনের অসংখ্য মানুষ। এই সংঘর্ষে আরও ১০ লাখ শিশু নতুন করে দুর্ভিক্ষের ঝুঁকিতে পড়েছে বলে দাবি করেছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক বেসরকারি সংস্থা সেভ দ্য চিলড্রেন।

যুদ্ধের কারণে রসদ সরবরাহ দুরূহ হয়ে উঠায় সবমিলিয়ে ৫২ লাখ শিশু দুর্ভিক্ষের ঝুঁকিতে রয়েছে বলে নতুন প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে সতর্ক করেছে প্রতিষ্ঠানটি। সৌদি জোটের আগ্রাসনে খাদ্য এবং জ্বালানির মূল্য নাগালের বাইরে চলে যাওয়াটাই এই পরিস্থিতির অন্যতম কারণ বলে মনে করছে সংগঠনটি।

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালে ইয়েমেনের হুতি বিদ্রোহীরা রাজধানী সানাসহ দেশটির পশ্চিমাঞ্চলের অনেকটা অঞ্চল দখল করে নেয়। এতে দেশটির প্রেসিডেন্ট মনসুর হাদি দেশ ছেড়ে পালাতে বাধ্য হন। হাদিকে পুনরায় ক্ষমতায় বসাতে আগ্রহী সৌদি আরব ও সংযুক্ত আরব আমিরাতসহ আরও সাতটি আরব দেশ হুতিদের বিরুদ্ধে সামরিক অভিযান শুরু। মধ্যপ্রাচ্যে ইরান সমর্থিত আরেকটি শিয়া গোষ্ঠীর উত্থানের আশংকা থেকেই সৌদি আরব জোট ইয়েমেনে তাদের আগ্রাসন শুরু করে। প্রধান সমুদ্র বন্দর হুদেইদাহ দেশটির বিদ্রোহীদের অধিকৃত এলাকাগুলোতে পাঠানো ত্রাণের প্রধান মাধ্যম। কিন্তু হুদেইদাহের চারপাশে চলা লড়াইয়ের কারণে বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত এলাকাগুলোতে ত্রাণ সরবরাহ ঝুঁকির মুখে পড়েছে। এতে বিদ্যমান পরিস্থিতি আরও নাজুক হয়ে পড়ার শঙ্কা দেখা দিয়েছে।

একদিকে দেশটির প্রশাসনিক ব্যবস্থা ভেঙ্গে পড়েছে অন্যদিকে সৌদি জোটের সার্বিক অবরোধে ইয়েমেনি রিয়ালের মূল্যমান ১৮০% হ্রাস পেয়েছে। ফলে খাদ্য সংকট চরম আকার ধারণ করেছে লাখ লাখ সাধারণ মানুষ চরম দুর্ভিক্ষের মুখে পতিত হয়েছে। সবচেয়ে ঝুঁকিতে রয়েছে এই দেশের শিশুরা।

 

 

 

 

গত মাসে সংস্থাটি আরেকটি প্রতিবেদনে জানায়, ভয়াবহ অপুষ্টিতে ভোগা পাঁচ বছরের কম বয়সী চার লাখ শিশুকে সহায়তা দিচ্ছেন তারা। কিন্তু ত্রাণ ব্যবস্থা অপর্যাপ্ত হওয়ায় চলতি বছরের শেষের দিকে ৩৬ হাজারেরও বেশি শিশুর প্রাণহানি হতে পারে।

বাঙালীয়ানা/এএ/জেএইচ

 

মন্তব্য করুন (Comments)

comments

Share.