এবার তবে অন্য গ্রহে প্রাণের সন্ধান মিলবে!

Comments

কে২-১৮বি নামের গ্রহটিতে জলের সন্ধান পাওয়া গেছে। আর এতেই তাতে প্রাণের অস্তিত্ব অনুসন্ধানের জন্য সবচেয়ে উপযুক্ত বলে বিবেচনা করছে বিজ্ঞানীরা। বেশ কয়েকটি ব্রিটিশ গণমাধ্যম এখবর জানিয়েছে।

জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা একটি দূরবর্তী নক্ষত্রের সম্ভাব্য বাসযোগ্য অঞ্চলের কক্ষপথের এই গ্রহে জল আবিষ্কারের বিস্তারিত তথ্য প্রকাশ করেছে বিজ্ঞান জার্নাল ন্যাচার অ্যাস্ট্রনমিতে। এই গবেষণার নেতৃত্ব দেওয়া ইউনিভার্সিটি কলেজ অব লন্ডনের অধ্যাপক জিওভান্না টিনেট্টি এই আবিষ্কারকে অভূতপূর্ব হিসেবে উল্লেখ করেছেন।

গবেষণা পত্রে বলা হয়েছে, ২০২০ সালে নতুন মহাকাশ টেলিস্কোপ আবিষ্কার হওয়ার পর নিশ্চিতভাবে জানা যাবে কে২-১৮বি গ্রহটিতে জীবনের অস্তিত্ব রয়েছে কিনা। কে২-১৮বি পৃথিবী থেকে ১১১ আলোক-বর্ষ অর্থাৎ প্রায় ৬৫০ মিলিয়ন মিলিয়ন মাইলস দূরে। ফলে তদন্তের জন্য কিছু পাঠানো যাচ্ছে না। বিজ্ঞানীরা ধারণা করছেন আগামী ১০ বছরের মধ্যে বিষয়টি জানা যাবে।

বুধবার, ১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ইউনিভার্সিটি কলেজ অব লন্ডনের ড. ইঙ্গো ওয়াল্ডম্যান এই উদ্ভাবন সম্পর্কে গণমাধ্যমে বলেন, অন্য গ্রহে প্রাণের অস্তিত্ব থাকার প্রশ্নটি বিজ্ঞানের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। আমরা সব সময় ভেবেছি বিশ্বমণ্ডলে কি আমরাই একা। আগামী ১০ বছরের মধ্যে আমরা জানতে পারব সেখানে জীবন থাকার মতো রাসায়নিক পদার্থের অস্তিত্ব রয়েছে কিনা।

এই গবেষক দল হাবল স্পেস টেলিস্কোপে ২০১৬ ও ১০১৭ সালে নিবিড় পর্যবেক্ষণ চালিয়ে কে২-১৮বি গ্রহে জলের সন্ধান পেয়েছেন। তারা বলছেন, এই গ্রহটির বায়ুমণ্ডলে জলের ভাগ ৫০ শতাংশ; আর এর গঠন পৃথিবীর জলের মতই। এই গ্রহটির আকার পৃথিবীর দ্বিগুণ এবং এর তাপমাত্রা শূন্য থেকে ৪০ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড।

গবেষক দলের সদস্য ড. অ্যাঞ্জেলস সিয়ারাস মনে করেন, “পৃথিবী কি একা? আমাদের সেই প্রশ্নের উত্তরের কাছাকাছি নিয়ে নিয়ে এসেছে এই তথ্য”

বাঙালীয়ানা/এসএল

মন্তব্য করুন (Comments)

comments

Share.