খোদ রাজধানীতে ঢাবি ছাত্রী ধর্ষিত

Comments

রাজধানীর কুর্মিটোলা এলাকায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় বর্ষের একজন ছাত্রী ধর্ষণের শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। তিনি ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।  

ঢামেক হাসপাতালে উপস্থিত ভুক্তভোগীর একজন সহপাঠী জানান, রবিবার বিকাল সাড়ে ৫ টার পর বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসে করে ওই ছাত্রী বান্ধবীর বাসায় যাচ্ছিলেন। কুর্মিটোলা বাস স্টেশনে নামার পর তাকে অজ্ঞাত এক ব্যক্তি অনুসরণ করতে থাকে। মাঝপথে তার মুখচেপে ধরে নির্জন স্থানে নিয়ে ধর্ষণ করে। ঘটনাটি সন্ধ্যা ৭ টা থেকে ৮ টার মধ্যে ঘটেছে। পরে রাত ১০টার দিকে জ্ঞান ফেরে ওই ছাত্রীর। এরপর তিনি রিকশায় করে বান্ধবীর বাসায় যান। সেখান থেকে বান্ধবীসহ অন্য সহপাঠীরা তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান।

তিনি এখন ওয়ানস্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে রয়েছেন। খবর পেয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. এ কে এম গোলাম রব্বানী, সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন সাদেকা হালিম ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সামিনা লুৎফা হাসপাতালে পৌঁছেছেন।

সোমবার, ৬ জানুয়ারি ২০২০, রাত দেড়টার দিকে ঢামেক হাসপাতালের পুলিশ ক্যাম্পের উপ-সহকারী পরিদর্শক (এএসআই) আব্দুল খান গণমাধ্যমকে এই তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় বর্ষের একজন ছাত্রী কুর্মিটোলায় ধর্ষণের শিকার হয়েছেন বলে আমরা জানতে পেরেছি। তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। কর্তব্যরত চিকিৎসকের কাছে তিনি (ভুক্তভোগী ছাত্রী) ঘটনার বর্ণনা দিয়েছেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. এ কে এম গোলাম রব্বানী গণমাধ্যমকে বলেন, ‘ঘটনা শোনার পরপরই বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে আইনি পদক্ষেপ গ্রহণের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। ওই ছাত্রীকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে আনা হয়েছে। তার সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন রয়েছে।’

সমাজবিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. সাদেকা হালিম বলেন, ‘এটি অত্যন্ত ন্যাক্কারজনক ঘটনা। আমরা এর প্রতিবাদ জানাচ্ছি।’

বাঙালীয়ানা/এসএল

মন্তব্য করুন (Comments)

comments

Share.