ফণী দূর্বল হয়ে এখন সাধারণ ‘ঘূর্ণিঝড়’

Comments
যশোর, ঝিনাইদহ, কুষ্টিয়া দিয়ে সাধারণ মাত্রা পাওয়া ঘূর্ণিঝড় ফণী শনিবার, ৪ এপ্রিল, ২০১৯, সকাল ১১টা থেকে ১২টায় প্রবেশ করবে। এরপর এটি রাজশাহী হয়ে রংপুরের দিকে এগিয়ে যাবে। এরপর এই ঘূর্ণিঝড় নিম্নচাপে পরিণত হয়ে বাংলাদেশের উত্তর দিয়ে বের হয়ে যাবে বলে ধারনা করছে আবহাওয়াবিদেরা।

ঘূর্ণিঝড় ফণীর প্রভাবে খুলনা বাগেরহাটসহ দেশের প্রায় দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে ভারী বৃষ্টিপাতসহ ঝড়ো হাওয়া বইছে। কোন কোন অঞ্চলে বেড়ীবাঁধ ভেঙ্গে জল ঢুকে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। বাতাসের গতিবেগ এখানে ৬২ থেকে ৮৮ কিমি।

বরগুনার পাথরঘাটা উপজেলায় প্রচণ্ড ঝোড়ো বাতাসে কাঠের ঘর ভেঙ্গে গতকালশনিবার ভোররাত আড়াইটার দিকে উপজেলার চরদুয়ানি ইউনিয়নের দক্ষিণ চরদুয়ানি গ্রামে বাঁধঘাট এলাকায় নিহত হয়েছে দুজন, নুরজাহান (৬০) ও জাহিদুর (৯)। বাড়ির একটি কক্ষে দাদি নুরজাহানের সঙ্গে ঘুমিয়েছিল নাতি জাহিদুর। রাতে প্রচণ্ড ঝোড়ো বাতাস ও বৃষ্টিতে ওই কক্ষটি ধসে পড়লে ঘটনাস্থলেই দাদি-নাতির মৃত্যু হয়।

দেশের বিভিন্ন স্থানে বজ্রপাতে মৃত্যু হয়েছে ৮ জনের।

আগের চেয়ে দুর্বল হয়ে পড়েছে ঘূর্ণিঝড় ফণী। শুক্রবার বিকালের দিকে এর বাতাসের গতিবেগ যেখানে ছিল ১৬০ থেকে ১৮০ কিলোমিটার। সেখানে রাত ১০ টায় সেটির বাতাসের গতিবেগ ১০০ থেকে ১২০ কিলোমিটার। ভোর তিনটায় গতি আরো কমে হয়েছে ৯০ থেকে১০০ কিলোমিটার। এটি সকাল সাতটায়ও একই গতিবেগে এগুচ্ছে। ফলে ফনী এখন একটি সাধারণ ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয়েছে।

ঘূর্ণিঝড় ফণী সকাল সাতটায়ও একই গতিবেগে এগুচ্ছে। ফলে ফনী এখন একটি সাধারণ ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয়েছে। বাংলাদেশে আঘাত হানার আগে এটা আরও দুর্বল হয়ে যাবে।

শঙ্কা কেটে গেলেও সতর্কতার সাথে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

বাংলাদেশ এবং এর উপকূলীয় এলাকায় শুক্রবার সকাল থেকে ঘূর্ণিঝড় ফণীর অগ্রবর্তী অংশের প্রভাব অব্যাহত থাকায় এই ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে বাংলাদেশের আকাশ মেঘাচ্ছন্ন থাকবে এবং দেশের বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টিপাত হবে বলে মনে করা হচ্ছে।

 

বাঙালীয়ানা/এসএল

মন্তব্য করুন (Comments)

comments

Share.