লুৎফুল হোসেনের কবিতা

Comments

জলমিতি
এক

বুকে জমা মেঘ তার গলনাঙ্কে সুখ
ফোঁটায় ফোঁটায় ঝরে যা কিছু
ওটুকুই অসুখ
তিলে তিলে সঞ্চয় সমৃদ্ধি
যার সমুদ্র সমান পরিধি
বৃষ্টিই তার
একান্ত নিজস্ব
সংগোপন সুখ
নির্বোধ লোকে
যতই বলুক
ঝরে গেলে মরে যায় মন
আদপে বৃক্ষ বিপরীত
সব ভুলচুক
ধুয়ে মুছে গেলে পরে
পত্রপল্লবময় ফের
নির্ভার বেঁচে ওঠে জীবন
সিঞ্চনে স্রোতধি হয়
প্রিয়তম মুখ

জলমিতি
দুই

কফির কাপে ধোঁয়ার মাপে
উড়তে থাকে মন
ভালোবাসা এমনি উদ্বায়ী
ভুলে যাই অনুক্ষণ

বাষ্পে বাষ্পে জলকণারা
কাচের মতোন ঘিরে ফেলে মন
চোখ কেবলি দিশা হারায়
রুদ্ধ বাষ্পময় দৃষ্টিহীন জীবন

~ ২০ জুন ২০২২

যাদের খুঁজছি

প্রহরের পায়ে নূপুর বেঁধে দেখেছি
ওরা তবু নিঃশব্দে পেরিয়ে যায় সীমানা
ভিসা পাসপোর্টের জমানা
ওদের নয়
ওরা চলিষ্ণু মেঘের গায়ে
সময়ের সঞ্চয়
ওদের
প্রহর প্রহর
পক্ষপাত প্রপঞ্চের প্রপাত
ওরা ভুল হিসেবের
পাতার পর পাতা
পাটীগণিতের প্রীতি
ওরা অবচয়
নিরুদ্দিষ্ট সময়ের গায়ে
স্বল্পশিক্ষিতের হিসেবের আঁচড়
ওরা হিসেবের মারপ্যাঁচে
এক জীবনে ফাঁপড়
ইচ্ছে-অনিচ্ছার সাত পুরুষের
হিসেব জাবেদার নির্যাস
ওরা সময়ের ভুলে
সত্যের ঠিকানায় ভুল চিঠি
সাতশো জনম ভুলের মাশুল
ডাকটিকিটের মতো
জীবনের গায়ে সেঁটে থাকা
অনিচ্ছুক যাপনের
নির্ভুল অনির্বাণ ত্রিশূল

~ ২৫ মে ২০২২

কী নামে ডাকি

কী নামে ডাকতে পারি তোমায়
লজ্জারাঙা সংশয় নিয়ে চাঁদ
বাদ সাধতেই পারে ওই নামে যদি ডাকি
পাখি কিংবা নদীরাও সামলে নিয়েছে মুখ
তোমার দিকে তাকিয়ে উন্মুখ
পূর্ণিমা নাম হলে পরে তারাদের বাড়ে অভিমান
বলো কী নামে ডাকি তোমায়

তোমাকে ডাকতে পারতাম বৃষ্টি
বহতা ঝর্ণারা উৎকীর্ণ হয়েছিলো
ভাবনাটা টের পেয়েই আমার
নাম হতে পারতো হরিণের নামে
চিত্রা কিংবা ডুরে
চোখের গভীর থেকে সাধলো ওরাও বাদ
তারপর এক ছুটে গেল অদৃশ্যে হারিয়ে

তুমি তো ইচ্ছেমৃত্যু
শখ করে মরবার সাধ
জীবনের জলছবি জুড়ে
প্রাণের ভিতর প্রাণের সংহার

নাম হতে পারতো উষ্ণতা
চুম্বন কিংবা আলিঙ্গন
করতল ছুঁয়ে থাকা তর্জনী মধ্যমা
কিংবা রাঙা আলপনা মেলে ধরা কোমল করতল

নাম হতে পারতো কবিতা
লহমায় বোনা কথার পসরা
ছোটো ছোটো গল্পময় বিকেল
কিংবা সন্ধ্যা নিরালা

নাম হতে পারতো বিম্ব
স্বপ্নগুলো সব দেখা যায় যাতে আমার
বা ধরো হতেই পারতো ছায়া
আমার অস্তিত্ব জুড়ে মিশে থাকা কায়া

বলো কোন নাম পছন্দ তোমার
কী নামে বলো ডাকা যায় আর
যখন তুমিই সেই কল্পছবি
যার মাঝে হারায় সবই

গোলাপ হতে পারতো
পারতো হতে বেলি হাসনুহানা
ডাকা যেতো প্রিয় ফুল নাম-
ধরো দোলনচাঁপা

তোমাকে ডাকবো ভেবেছি
নাইটকুইন
ক্রিসেনথিমাম
বোগেনভেলিয়া

সব সম্ভাবনা ছাপিয়ে
ভেসে থাকে তবু
এক জোড়া চোখ
সাত সমুদ্দুর মায়া

হাতখানা দেবে করতলে আমার-
ধ্যনস্থ হই তাকে ছুঁয়ে
বুঁদ হয়ে খুঁজে নিই
হৃদস্পন্দনের সাথে ঠিক ঠিক মেলে কোন নাম

~ ১৯ এপ্রিল ২০১৭

লেখক:
Lutful Hossain02
লুৎফুল হোসেন, কবি ও প্রাবন্ধিক

মন্তব্য করুন (Comments)

comments

Share.

About Author

বাঙালীয়ানা স্টাফ করসপন্ডেন্ট