হজ ক্যাম্পে কোয়ারেন্টিনে ইতালি ফেরতদের বিক্ষোভ

Comments
হজ ক্যাম্পে কোয়ারেন্টিনে রাখা ইতালি ফেরত যাত্রীরা বিক্ষোভ করছে বলে জানা গেছে।
শনিবার, ১৪ মার্চ ২০২০ এমিরেটস এয়ারলাইন্সের ফ্লাইটে সকাল ৮টা ২০ মিনিটে ১৪২ জন বাংলাদেশী হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করেন। পরে সবাইকে সর্বোচ্চ সতর্কতায় আশকোনা হজ ক্যাম্পে নিয়ে যাওয়া হয়।
হযরত শাহজালাল  আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছানোর পর এই যাত্রীদের সরাসরি আশকোনার হজ ক্যাম্পে কোয়ারেন্টিনের উদ্দেশ্যে নিয়ে যাওয়া হলে তারা সেখানে থাকতে অস্বীকৃতি জানাচ্ছেন।
এদিকে করোনায় বিপর্যস্ত ইতালি থেকে আগত বাংলাদেশীদের কেউ রোগাক্রান্ত নন বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। তবে দেশে ঝুঁকি এড়াতে তাদের কোয়ারেন্টিনে রেখে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।
আইইডিসিআরের নিয়মিত সংবাদ সম্মেলনেও জানানো হয়, প্রাথমিক পরীক্ষায় ইতালি ফেরত এই ব্যক্তিদের মধ্যে কোভিড-১৯ রোগের কোনো লক্ষণ দেখা যায়নি।
ইতালিতে ২৪ ঘন্টায় নতুন করে আড়াই শতাধিক মানুষের মৃত্যু হয়েছে করোনা ভাইরাসে। এমন বাস্তবতায় ১৪২ জন বাংলাদেশীকে নিয়ে সকালে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে এমিরেটস এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইট। সেখানেই ৪টি থারমাল স্ক্যানারে স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও হেলথ কার্ড পূরণ করে ইমিগ্রেশন পার হন বিদেশ থেকে আসা যাত্রীরা। এরপর, সর্বোচ্চ নিরাপত্তায় বিআরটিসি ও বাংলাদেশ পুলিশের ৪ টি বাসে করে তাদের নিয়ে যাওয়া হয় আশকোনা হজক্যাম্পে। শরীরে করোনার উপসর্গ নির্ণয়ে কয়েক ধাপে পরীক্ষা নিরীক্ষা করবার কথা সেখানেই।

ইতালি ফেরতদের দাবী, তাদেরকে অযথা এখানে আটকে রাখা হয়েছে। হজ ক্যাম্পে থাকার কোনো ধরনের সুব্যবস্থা নেই। তারা আরও বলছেন, ইতালিতে দু’বার এবং দুবাই-এ একবার তাদের টেস্ট করানো হয়েছে। এখানে বিমান  থেকে নামার সঙ্গে সঙ্গে তাদের পাসপোর্ট নিয়ে যায় সংশ্লিষ্টরা।

রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত তারা হজ ক্যাম্প ভবনের বাইরে অবস্থান করে বিক্ষোভ করছিলেন তারা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে সেখানে পুলিশের অতিরিক্ত ফোর্স মোতায়েন করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশে এর আগে ইতালিফেরতসহ যে তিনজনের দেহে নভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঘটেছিল, তারাও সুস্থ হয়ে উঠেছেন বলে জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

বাঙালীয়ানা/এসএল

মন্তব্য করুন (Comments)

comments

Share.