স্যাটেলাইট গ্রাউন্ড স্টেশন উদ্বোধন

Comments

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, “আমরা একসময় চাঁদে যাওয়ার স্বপ্ন দেখতাম, এখন সেই সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। আমি আশা করি আমাদের দেশের ছেলেমেয়েরা একদিন স্পেস-এ যাবে। দেশের মুখ উজ্জ্বল করবে।”

আজ মঙ্গলবার, ৩১ জুলাই, ২০১৮, রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক কনভেনশন সেন্টার থেকে বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইটের গাজীপুর গ্রাউন্ড স্টেশন এবং বেতবুনিয়া গ্রাউন্ড স্টেশন দুটি উদ্বোধন এবং গ্রাউন্ড স্টেশন দুটি সজীব ওয়াজেদ জয়ের নামে নামকরণের ঘোষণাকালে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

Sheikh Hasina

উদ্বোধনকালে প্রধানমন্ত্রী গাজীপুর ও বেতবুনিয়া সজীব ওয়াজেদ উপগ্রহ ভূ-কেন্দ্রের কর্মকর্তাদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে কথা বলেন। এ সময় কর্মকর্তারা গ্রাউন্ড স্টেশন দুটি সজীব ওয়াজেদের নামে নামকরণ করায় ধন্যবাদ জানান প্রধানমন্ত্রীকে।

বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক কনভেনশন সেন্টারের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সজীব ওয়াজেদ জয় ও মন্ত্রিসভার সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

bangabandhu-satellite-1

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ প্রকল্প সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, এ স্যাটেলাইটে থাকছে ৪০টি ট্রান্সপন্ডার সক্ষমতা। প্রতিটি ট্রান্সপন্ডার প্রায় ৩৬ মেগাহার্টজ বেতার তরঙ্গের সমপরিমাণ। অর্থাৎ ৪০টি ট্রান্সপন্ডার থেকে পাওয়া যাবে প্রায় এক হাজার ৪৪০ মেগাহার্টজ পরিমাণ বেতার তরঙ্গ বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইট থেকে।

এর মধ্যে ২০টি ট্রান্সপন্ডার বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ প্রয়োজনে ব্যবহার করবে। আর ২০টি ট্রান্সপন্ডার বিদেশি রাষ্ট্রের কাছে ভাড়া দেওয়ার জন্য রাখা হবে।

৪০টি ট্রান্সপন্ডারের মধ্যে ২৬টি হচ্ছে কেইউ ব্যান্ডের এবং ১৪টি সি ব্যান্ডের। গাজীপুর ও চট্টগ্রামের বেতবুনিয়ায় স্থাপিত দুটি ভূ-উপগ্রহ কেন্দ্র থেকে নিয়ন্ত্রিত হবে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১।

এর মধ্যে গাজীপুরের গ্রাউন্ড স্টেশনটি প্রধান কেন্দ্র হিসেবে এবং বেতবুনিয়ার স্টেশনটি ব্যাকআপ অর্থাৎ বিকল্প কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহৃত হবে।

মন্তব্য করুন (Comments)

comments

Share.